বৃহস্পতিবার , ২৭ জুন ২০১৯
  • হোম » ইন্টারভিউ » খুলনাঃ মেয়াদের দু’বছর আগেই রিজাইন করবেন কাউন্সিলর তপন


খুলনাঃ মেয়াদের দু’বছর আগেই রিজাইন করবেন কাউন্সিলর তপন





বিশেষ প্রতিনিধি

আমার ওয়ার্ডের জনগণকে যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তা পালন করতে চলতি সময় ধরে তিন বছর লেগে যাবে, তারপরেই কাউন্সিলর পদ থেকে রিজাইন করবো। দেশের বাইরে আমার ছেলে মেয়েরা আছে। সেখানে চলে যাব। দেশ বিদেশ মিলিয়ে অবসর সময় কাটাবো। এই কথাগুলি খুলনা সিটি কর্পোরেশনের তিন তিনবারের কাউন্সিলর আজমল আহমেদ তপনের।
নিজের কাউন্সিলর অফিসে বসে আলাপকালে সৎ, স্পষ্টবাদী, প্রচন্ড ব্যক্তিত্বের অধিকারি তপন বলেন, বয়স হয়েছে অনেক। এখন অবসরে যাবার সময়।

দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সময়ে তার বাসাতে সশস্ত্র হামলা হলে সেই থেকেই দলের এক সময়ের থিংক ট্যাংকার হিসাবে সমাদৃত তপন নিজেকে রাজনিতি থেকে একেবারেই গুটিয়ে নেন। খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের অন্যতম সহসভাপতি তপন বলেন, অনেক রাজনিতি করেছি, অনেক হয়েছে। আর রাজনিতি নয়।
খুলনা শহরের সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান তপন রাজনিতির পাশাপাশি ক্রীড়াঙ্গন, ব্যবসায়ি সম্প্রদায়, সুশীল সমাজে পরিচিত একটি নাম। খুলনা চেম্বারের সহ সভাপতিও ছিলেন এক সময়ে।

প্যানেল মেয়র ছিলেন গত টার্মে। প্যানেল মেয়র হিসাবে দায়িত্বও পালন করেছেন দীর্ঘদিন। স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ অসংখ্য সামাজিক, সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত তিনি।
ব্যাক্তি জিবনে ক্লিন ইমেজের অধিকারি, ধনাঢ্য ব্যবসায়ি তপন জানান, বাসাতে হামলার কারনে পরিবার, পরিচিতদের কাছে খুব ছোট হয়ে গেছি। এই বাসাতে তো শুধু আমি থাকি এমন তো না।

আমার অন্য ছোট ভাইরা থাকে, তাদের পরিবার, সন্তান সন্ততি থাকে। সবার কাছেই আমি হেয় হয়ে গেছি। তিনি বলেন, আমার দল ক্ষমতায়, আমি নিজেও তিন তিনবারের কাউন্সিলর। তার পরেও আমি আমার বাসাতে হামলার ঘটনায় কোনও বিচার পাইনি। দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দও মিনিমাম খোজটুকু পর্যন্ত নেন নি। প্রশাসন অসহায়ত্ব প্রকাশ করেছে।
দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, আগের সেই সৌহার্দপূর্ণ আন্তরিক পরিবেশে রাজনিতি আর নেই। এখন সব জায়গাতেই কালো টাকার জয় জয়কার। এই রাজনিতিতে আমি একেবারেই বেমানান। তাই তো রাজনিতিকে গুডবাই জানাবো।

খুলনা উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মেয়র খালেক ভাই ইতমধ্যেই ১৩৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ এনেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আপন চাচাতো ভাই শেখ জুয়েল এখন খুলনা সদরের এমপি। জুয়েল ভালো ছেলে। নির্লোভ। আশা প্রকাশ করে তপন বলেন, খুলনা উন্নয়নে জুয়েল ব্যাপক ভুমিকা রাখতে পারবেন। রাখবেনও। খুলনার প্রতি শেখ পরিবারের বরাবরই সুদৃষ্টি রয়েছে।
তিনি বলেন, খুলনা সিটির উন্নয়ন দৃশ্যমান হতে চলেছে। টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে এই জন্য সিটি কর্পোরেশনে জনবল বাড়ানোর তাগিদ এই বর্ষীয়ান রাজনিতিকের।



প্রকাশক ও সম্পাদক : শাহিন রহমান

অফিস : ১১৪ নাখালপাড়া, ঢাকা-১২১৫
Email : prothomshomoy@gmail.com