শনিবার, ২৫ মে ২০১৯
  • হোম » আরও সংবাদ » প্রতি উপজেলায় ১০০ শয্যার হাসপাতাল হবে: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী


প্রতি উপজেলায় ১০০ শয্যার হাসপাতাল হবে: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী





অনলাইন ডেস্ক

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান এমপি বলেছেন, দেশের প্রতিটি উপজেলায় ১০০ শয্যার হাসপাতাল করা হবে। সারা দেশের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরাম খাঁ হলে অনুষ্ঠিত জামালপুর সাংবাদিক ফোরাম-ঢাকার প্রীতি সম্মিলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে ঢাকায় কর্মরত জামালপুরের সাংবাদিকদের সংগঠন জামালপুর সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা। ফোরামের সভাপতি মোহাম্মদ আবু সাঈদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক উবায়দুল্লাহ বাদল। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি, জামালপুর সদর আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোজাফফর হোসেন, বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হক, বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোস্তফা আল মাহমুদ প্রমুখ।

ডা. মুরাদ হাসান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা এবং নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী দেশের প্রতিটি মানুষের দোরগোড়ায় মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে ১০০ শয্যার হাসপাতাল তৈরি করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় জামালপুরও এগিয়ে যাবে। জামালপুরে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ করা হবে। আমি ২৫০ শয্যার হাসপাতাল করার ঘোষণা দিয়েছি। জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলার ৫০ শয্যাবিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হবে। টেন্ডার হয়ে গেছে।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মির্জা আজম বলেন, জামালপুরে ৫০টির বেশি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। যার ১০ শতাংশও দৃশ্যমান হয়নি, শুধুমাত্র স্থানীয় জেলা প্রশাসনের অদক্ষতার কারণে। এই বিষয়গুলো গণমাধ্যমে তুলে ধরার জন্য জামালপুর সাংবাদিক ফোরামের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা দরকার।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য মির্জা আজম আরও বলেন, দেশের প্রতিটি বিভাগে এক বা একাধিক বিমানবন্দর থাকলেও ময়মনসিংহ বিভাগে কোনো বিমানবন্দর নেই। আমরা আমাদের বিভাগে একটি বিমানবন্দর চাই। ময়মনসিংহে সুবিধাজনক স্থান পাওয়া না গেলে তা জামালপুরের নুরুন্দিতেই প্রস্তাবিত বিমানবন্দরটি করা হতে পারে। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছেও অনুরোধ জানিয়েছেন।

একটি বিমানবন্দরের জন্য জামালপুর সদর উপজেলার নুরুন্দি ইউনিয়নের ১০ হাজার একর জমি রয়েছে। যা ময়মনসিংহ, শেরপুর ও নেত্রকোনা জেলা শহরের কাছাকাছি। নরুন্দিতে বিমানবন্দর হলে কারো কোনো আপত্তি থাকবে না বলে জানান মির্জা আজম।



প্রকাশক ও সম্পাদক : শাহিন রহমান

অফিস : ১১৪ নাখালপাড়া, ঢাকা-১২১৫
Email : prothomshomoy@gmail.com