শনিবার, ২৫ মে ২০১৯


কিরগিজদের হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ





ক্রীড়া ডেস্ক

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ মহিলা গোল্ডকাপে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। শুক্রবার ছিল গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াই। সেই মিশনে কিরগিজস্তানকে ২-১ গোলে হারিয়ে ‘বি’ গ্রুপের সেরা হয়েই সেমিফাইনালে নামতে যাচ্ছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

স্কোরলাইন দেখে বোঝা যাবে না বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ম্যাচে কতটা আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে বাংলাদেশ। একের পর এক আক্রমণে কৃ্ষ্ণা-সানজিদারা ব্যস্ত রেখেছেন কিরগিজস্তানের রক্ষণভাগকে। কিন্তু অ্যাটাকিং থার্ডে গিয়ে খেই হারিয়ে ফেলায় সংযুক্ত আরব আমিরাত ম্যাচের মতো গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচেও জয়ের ব্যবধান বড় হয়নি স্বাগতিকদের।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের দর্শকরা নড়েচড়ে বসার আগেই এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। মাত্র ২৯ সেকেন্ডে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেন সানজিদা আক্তার। বাঁ প্রান্ত থেকে ফরোয়ার্ড কৃষ্ণা রানীর ক্রস থেকে কিরগিজ গোলরক্ষক তোলোনোভা এইচুরেক হাত ফসকে বেরিয়ে যাওয়া বলে বাঁ পায়ের শটে জালে জড়িয়ে দেন সানজিদা। তাতে ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ায় আনন্দে মেতে ওঠে গ্যালারির প্রায় আট হাজার দর্শক।

পরের গল্পটা শুধুই গোল মিসের! ১৩ মিনিটে সানজিদার কাটব্যাক থেকে কৃষ্ণা শট নিলেও গোলমুখে রাখতে পারেননি। ২৪ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে ওই সানজিদার ক্রসে কৃষ্ণা হেড করলেও বল যায় বার ঘেঁষে।

মিনিট খানেক পর চোট পেয়ে মাঠ ছাড়া স্বপ্নার বদলি হয়ে মাঠে নামা মার্জিয়ার পাসে চমৎকার সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন কৃষ্ণা, কিন্তু এই ফরোয়ার্ডের নেওয়া শট প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। তবে সবচেয়ে বেশি হতাশায় পুড়ছেন দর্শকরা ৩৫ মিনিটে, যখন বক্সের ভেতর থেকে মার্জিয়ায় বাঁ পায়ের নেওয়া জোরালো শটে কেঁপে ওঠে বার।

১-০ গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করা বাংলাদেশ বিরতির পরও আক্রমণের ধারা সচল রাখে। তার পুরস্কারও পায় ৫৯ মিনিটে। প্রথমার্ধে নিশ্চিত কয়েকটি সুযোগ নষ্ট করা কৃষ্ণা এবার আর ভুল করেননি, তার লক্ষ্যভেদেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাংলাদেশ। প্রথম মিনিটে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়া সানজিদা এবার গোলের জোগানদাতা। তার চমৎকার ক্রস গ্রিপে নিতে ব্যর্থ হন কিরগিজ গোলরক্ষক, ফসকে যাওয়া বলে হেড করে জালে জড়ান কৃষ্ণা।

কিন্তু মিনিট চারেক পর গোল হজম করে বসে বাংলাদেশ। ৬৩ মিনিটে আখমাতুলোভা জেরিনার লক্ষ্যভেদ খেলায় ফেরার ইঙ্গিতও দেয় কিরগিজস্তান। স্বাগতিক গোলরক্ষক রুপমা চাকমা বলের লাইন থাকলেও জেরিনার নেওয়া শট ঠেকাতে পারেননি তিনি।

এরপর ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে গেছে বাংলাদেশ। কিন্তু গোল ‍মিসের মহড়ায় সেটা না হলেও ২-১ ব্যবধানের জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের। ৩০ এপ্রিল গ্রুপ ‘এ’ রানার্স-আপের বিপক্ষে সেমিফাইনালের লড়াই বাংলাদেশের। বিপরীতে হেরে গেলেও আগেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত করা কিরগিজস্তান শেষ চারে নামবে গ্রুপ রানার্স-আপ হয়ে।

জয় দিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যের কথা আগেই জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। সেটা করতে পারায় স্বভাবতই খুশি তিনি, ‘পরিকল্পনা ছিল জেতার, ৩ পয়েন্ট পাওয়ার। মেয়েরা জিতেছে, তাই তাদের ধন্যবাদ। আমরা ২ গোল দিলেও নিজেদের ভুলে একটি হজম করেছি। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে জয় পাওয়া অনেক বড় বিষয়। এটা মেয়েদের উজ্জীবিত করবে।’

নিজে এক গোল করার পর অন্যটিতে ছিলেন অ্যাসিস্টের ভূমিকায়, ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে তাই সানজিদার হাতে। পারফরম্যান্সের ধারা তিনি সামনের ম্যাচেও ধরে রাখতে চান, ‘ম্যাচসেরা হয়ে ভালো লাগছে। পুরো ম্যাচে ভালো খেলার চেষ্টা করেছি। সামনের ম্যাচেও এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’



প্রকাশক ও সম্পাদক : শাহিন রহমান

অফিস : ১১৪ নাখালপাড়া, ঢাকা-১২১৫
Email : prothomshomoy@gmail.com