শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯
  • হোম » বিনোদন ১ » চাষী নজরুল ইসলামের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ


চাষী নজরুল ইসলামের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ





বিনোদন ডেস্ক
বাংলা চলচ্চিত্রে আজও তারা হয়ে জ্বলছেন চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম। তাঁর নির্মিত মুক্তিযুদ্ধ ও সাহিত্য নির্ভর চলচ্চিত্র বাংলা চলচ্চিত্রশিল্পকে করেছে সমৃদ্ধ। একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করা এই পরিচালকের আজ (১১ জানুয়ারি) চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১৫ সালের এই দিনে দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন চাষী নজরুল ইসলাম। চলুন জেনে নেই তাঁর সম্পর্কে কিছু তথ্য-
– চাষী নজরুল ইসলামের জন্ম ১৯৪১ সালের ২৩ অক্টোবর বিক্রমপুরের শ্রীনগরে।

– তাঁর নাম রাখেন বাংলার বাঘ শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক। চাষীর মামা শেরেবাংলার সঙ্গে রাজনীতি করতেন। সেই সূত্রে নাম রাখার দায়িত্ব বর্তায় শেরেবাংলার উপর। তখন তিনি তাঁদের বংশ ‘চাষী’ এবং কবি নজরুলের ‘নজরুল’ মিলিয়ে এই নামকরণ করেন।

– চাষী নজরুলের বাবা ছিলেন ভারতের টাটা স্টিলের ইঞ্জিনিয়ার। সেই সূত্রে তাঁর মা তাঁকে বাবার কর্মস্থল জামশেদপুরে নিয়ে যান।

– শৈশব কাটে ভারতের জামশেদপুরে। সেখানেই তিনি বাবার প্রতিষ্ঠা করা স্কুলে পড়াশোনা করেন। জমশেদপুরেই কলেজ সম্পন্ন করেন চাষী নজরুল।

– বাবার অসুস্থতার দরুন ১৯৫৮ সালে চাষীর পরিবারে সবাই বিক্রমপুরে চলে আসে।

– ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত এজি অফিসে পোস্ট সর্টার হিসেবে কাজ করেন চাষী নজরুল।

– পরিচালক হওয়ার আগে দীর্ঘদিন মঞ্চে কাজ করেছেন।

– তৎকালীন পরিচালক ফতেহ লোহানি এবং সাংবাদিক ও চলচ্চিত্রকার ওবায়েদ উল হকের সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন দীর্ঘদিন।

– ১৯৭১ সালে সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন চাষী নজরুল ইসলাম।

– যুদ্ধ থেকে ফিরে বাংলাদেশের প্রথম মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমা ‘ওরা ১১ জন’ নির্মাণ করেন। ওটাই ছিল চাষী নজরুল ইসলামের প্রথম ছবি।

– সাহিত্য এবং মুক্তিযুদ্ধ নির্ভর প্রায় ২৬টি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন গুণী এই পরিচালক।

-তাঁর পরিচালিত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে ‘ওরা ১১ জন’, সংগ্রাম’, ‘হাঙর নদী গ্রেনেড’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘ধ্রুবতারা’, ‘দেবদাস’, ‘শুভদা’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, ‘হাছন রাজা’, ‘শাস্তি’ ও ‘সুভা’।

-বাংলা চলচ্চিত্রে অসামান্য অবদানের জন্য পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, একুশে পদকসহ দেশ-বিদেশের বহু সম্মাননা।



প্রকাশক ও সম্পাদক : শাহিন রহমান

অফিস : ১১৪ নাখালপাড়া, ঢাকা-১২১৫
Email : prothomshomoy@gmail.com