বৃহস্পতিবার , ২৭ জুন ২০১৯
  • হোম » ইন্টারভিউ » টিম ক্যাপ্টেন হতে পারলে পরিচ্ছন্ন সংগঠন উপহার দিব: আইরিন চৌধুরী


টিম ক্যাপ্টেন হতে পারলে পরিচ্ছন্ন সংগঠন উপহার দিব: আইরিন চৌধুরী






ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ খুলনা মহানগরীতে যুব মহিলা লীগের নতুন কমিটি হতে যাচ্ছে, এমন খবরে খুলনার সংগঠনে নেতা কর্মীদের মাঝে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, ক্লিন ইমেজের মেয়েদের নিয়ে এবার প্রথমে আহ্বায়ক কমিটি পরে সম্মেলনের মধ্য দিয়ে পূর্ণাংগ কমিটি করা হবে। আসন্ন খুলনা মহানগর আহ্বায়ক কমিটির টিম ক্যাপ্টেইন হিসাবে সর্বোচ্চ আলোচিত হচ্ছে ডেইজির নেতৃত্বাধীন আইরিন চৌধুরী নিপার নাম। বিষয়টি স্বীকার বা অস্বীকার না করে বয়রা গার্লস কলেজের সাবেক এই ছাত্রলীগ নেত্রী বলেছেন, আমি রাজনিতি করি, আমাকে দায়িত্ব দিলেও আছি, না দিলেও একজন নিবেদিত কর্মী হিসাবে সংগঠনের জন্য কাজ করে যাব।

প্রচন্ড আত্মবিশ্বাসী আইরিন চৌধুরী জানান, সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, শম্পা ভাবি, নাজমা আপার নির্দেশে, ডেইজি আপার সহযোগিতায় টিম ক্যাপ্টেইনের দায়িত্ব পেলে একটি পরিচ্ছন্ন সংগঠন খুলনাবাসীকে উপহার দিতে চেষ্টা করবো। সব বিতর্কের ঊর্ধ্বে থাকবে আমাদের এই প্রান প্রিয় সংগঠন।


আইরিন চৌধুরী নিপা। বয়রা গার্লস কলেজের ৯০ এর দশকের ছাত্রলীগ নেত্রি। তারই ধারাবাহিকতায় এখন যুব মহিলা লীগ করছেন। স্পষ্টবাদী, কর্মঠ, সদালাপি আইরিন খুলনা শহরে একটি পরিচিত নাম। গেলো সিটি মেয়র ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আইরিন যুব মহিলা লীগের টিম নিয়ে দলের হয়ে নিরলসভাবে কাজ করে প্রশংসিত হয়েছেন। আইরিন একাধারে ব্যবসায়ি, এর পাশাপাশি রাজনিতিক। সামাজিক ও পারিবারিকভাবেও ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা আছে আইরিনদের। প্রয়াত স্বামী খুলনা শহরে নামকরা ব্যবসায়ি ছিলেন।
হার্ট এটাকে ২০১১ সালে ২১শে ফেব্রুয়ারিতে স্বামী মারা যাবার পরে স্বামীর ব্যবসায়ের হাল ধরেন দুই সন্তানের জননী আইরিন। পুরুষ শাসিত এই সমাজে স্বামীর রেখে যাওয়া ব্যবসা, সংসার চালাতে গিয়ে পদে পদে বাধাগ্রস্থ হলেও মুহূর্তের জন্য লক্ষ্যচ্যুত হননি আইরিন। বরং স্ট্রাগল করেই তিনি নিজেকে ধরে রেখেছেন একজন সফল ব্যবসায়ি হিসাবে, একজন সফল মা হিসাবে। এর পাশাপাশি রাজনিতিও তার কাছে আরেক পরিবার। যে পরিবারের অভিভাবক পিতৃসমতুল্য খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। খুলনা আখতার চেম্বারে নিজ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে নেতা কর্মীদের সামনে প্রথম সময়ের সঙ্গে আলাপকালে আইরিন বলেন, এখন আমাদের মাননীয় এমপি বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ জুয়েলের স্ত্রী শম্পা ভাবিকে আমাদের অভিভাবক হিসাবে পেয়েছি। উনাকে আমাদের মাঝে পেয়ে আমরা নতুন করে উজ্জীবিত, নেতা কর্মীদের মনোবল, সাহস, উৎসাহ বেড়েছে। সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি আফসানা হাসান ডেইজির সার্বক্ষণিক অনুপ্রেরণা, সভাপতি নাজমা আখতারের অকৃত্তিম ভালবাসা, গঠনমূলক নির্দেশনায় শেখ হাসিনার হাতে গড়া সংগঠন যুব মহিলা লীগের কর্মী আজকের এই আইরিন। এই কথা অবলীলায় স্বীকার করে কর্মী বান্ধব আইরিন বলেন, বিতর্কের বাইরে আছেন, সামাজিকভাবে যাদের অবস্থান আছে এমন পরিচ্ছন্ন ইমেজের মেয়েদের নিয়েই সংগঠন করতে চাই। তেমনই সংগঠন করা হবে। তিনি বলেন, ভাল, ভদ্র মেয়েরা কাজ করতে চায়, ভালো ভালো ঘরের শিক্ষিত মেয়েরা আসতে চায়। কিন্তু কিছু বিতর্কিত মেয়েদের কারণে নতুন মেয়েরা আসতে চায় না। তারা রাজনিতিকে ভয় পায়। দৃঢ়তার সঙ্গে যুব মহিলা লীগ নেতা আইরিন বলেন, এসব বিতর্কিত মেয়েকে বাদ দিলে সংগঠন আরও ব্যাপ্তি লাভ করবে, গতিশীল ও প্রাণবন্ত হবে। আইরিন বলেন, আমাদের মেয়েরা যাতে রাজনিতির পাশাপাশি স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারে সেটা করাই আমার লক্ষ্য থাকবে।
আইরিন জানান, কাজের ক্ষেত্রে স্বাধীনতা পেলে বেশ কিছু নতুনমুখ, নগরির বিশিষ্ট জনদের এবার নগর কমিটিতে দেখা যাবে। বঙ্গবন্ধু প্রেমিক এসব নেতা কর্মীরা এতদিন ভাল পরিবেশের কারণে রাজনিতিতে নিস্ক্রিয় ছিলেন। যুব মহিলা লীগকে আবারও ঐতিহ্যবাহী সংগঠনে পরিনত করা হবে, হারানো ইমেজ ফিরিয়ে আনা হবে। একটি মর্যাদার সংগঠনে পরিনত করা হবে এমনটি আশাবাদ এই নেত্রীর।

উল্লেখ্য, খুলনা সিটি কর্পোরেশনে মেয়র নির্বাচনের সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর ও আজেবাজে পোষ্ট, সাংগঠনিক কাজে বাঁধা প্রদান, সংগঠনের নেতাদের বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়া, তিন মাসের মধ্যে সম্মেলন করতে ব্যর্থতার কারণে গত পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে খুলনা মহানগরে যুব মহিলা লীগের কমিটি নেই।



প্রকাশক ও সম্পাদক : শাহিন রহমান

অফিস : ১১৪ নাখালপাড়া, ঢাকা-১২১৫
Email : prothomshomoy@gmail.com