মঙ্গলবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৮


পোশাক খাতে আয়কর কমানো উচিত : সালাম মুর্শেদী





অন লাইন ডেস্ক : তৈরি পোশাক প্রস্ততকারক ও রপ্তানিকারকদের আয়কর কমানো উচিত বলে মনে করেন রপ্তানিকারকদের সংগঠন এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ইএবি) সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী। প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ কথা বলেন।

সালাম মুর্শেদী বলেন, অর্থমন্ত্রী কর হার বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার কথা বলেছেন। আমি মনে করি এটাকে কমানো উচিত। ১০ শতাংশ করা উচিত। আশা করি, অর্থমন্ত্রী এটা পুনর্বিবেচনা করবেন। বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি বলেন, পোশাক শিল্প চ্যালেঞ্জের মুখে। কারখানা সংস্কারে মালিকদের অতিরিক্ত টাকা লেগেছে। ইউরোপ ও আমেরিকার ক্রেতাদের জোট অ্যাকোর্ড ও অ্যালায়েন্সের পরামর্শ অনুযায়ী সংস্কার চলছে, অনেক টাকা খরচ হচ্ছে এতে। আমরা পোশাক শিল্পে আরও কর্মপরিবেশ উন্নয়নে কাজ করছি। গ্রিন ইন্ডাস্ট্রি বা পরিবেশবান্ধব সবুজ শিল্পায়ন গড়ে তুলছি। আবার সামনে পোশাক শ্রমিকরা নতুন মজুরি কাঠামোতে বেতন পেতে যাচ্ছেন। আমরা আশা করব, অর্থমন্ত্রী তৈরি পোশাক উৎপাদন ও রপ্তানিতে নিয়োজিত করদাতাদের করহার কমাবেন। সূত্র : ঢাকা টাইমস।

করপোরেট ট্যাক্স বাড়ানো হলে পোশাক শিল্পের অগ্রগতি ধীর হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা এই ব্যবসায়ী নেতার। বলেন, দেশ উন্নয়নশীলের কাতারে, এখন প্রচুর বিনিয়োগ প্রয়োজন। কর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রয়োজন। তাই বেসরকারি খাতকে বিনিয়োগের পরিবেশ করে দিতে হবে।

তৈরি পোশাক শিল্প থেকে পণ্য রপ্তানি আয়ের ৮২ শতাংশ আসে জানিয়ে দেশের শীর্ষ পোশাক রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান এনভয় গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, সরকার ২০২১ সালের মধ্যে মোট ৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। এ টার্গেট পূরণ করতে হলে তৈরি পোশাক শিল্পে সহায়তা দিতে হবে।

প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাজেটে তৈরি পোশাক প্রস্ততকারক ও রপ্তানিকারকদের আয়কর বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজেটে তৈরি পোশাক উৎপাদন ও রপ্তনিতে নিয়োজিত (সাধারণ) কারখানার করহার ১৫ শতাংশ ও তৈরি পোশাকের তালিকাভুক্ত কোম্পানির করহার ১২ দশমিক ৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে।

বর্তমানে একক আয়কর হার ১২ শতাংশ রয়েছে। অর্থমন্ত্রী প্রস্তাবিত বাজেটে পরিবেশসম্মত ভবন সনদ (গ্রিন বিল্ডিং সার্টিফিকেশন) আছে এমন সবুজ কারখানার আয়কর হার ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১২ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব করেন।



প্রকাশক ও সম্পাদক : শাহিন রহমান

অফিস : ১১৪ নাখালপাড়া, ঢাকা-১২১৫
Email : prothomshomoy@gmail.com